০৫/০৭/২০২০ ০২:১৮:৫৩

matrivhumiralo.com পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন

প্রতি মুহূর্তের খবর

o ঝালকাঠিতে সড়ক দুর্ঘটনায় যুবক নিহত o জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার সভাপতি অসুস্থ o লঞ্চডুবির ঘটনায় ৩২ জনের মৃতদেহ উদ্ধার o অক্সিজেন ব্যাংকের উদ্বোধন করেছে বাসদ o বুড়িগঙ্গা পাড়ে স্বজন হারানোর কান্না
আপনি আছেন : প্রচ্ছদ  >  সাহিত্য  >  আধুনিক শোষণমুক্ত সমাজ

আধুনিক শোষণমুক্ত সমাজ

পাবলিশড : ০৭/০৪/২০১৮ ১৩:০৯:২৭ পিএম আপডেট : ০৭/০৪/২০১৮ ২১:৪৫:০৬ পিএম
আধুনিক শোষণমুক্ত সমাজ

লেখক : শরীফ মোহাম্মদ আমীরুজ্জামান ::

শেখ মুজিবুর রহমান জাতির পিতা, বাংলাদেশ। তিনি এমন এক শোষণমুক্ত সমাজের রূপরেখা দিয়েছেন যেখানে ধনতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, গণতন্ত্র ও ধর্ম এক সাথে থাকবে অন্যদিকে জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে ধনী, দরিদ্র সকলে শান্তিতে সহবাস্থান করবে এবং পার্থিব জগতে স্বর্গীয় সুখ অনুভব করবে। তাঁর প্রদত্ত সমাজ ব্যবস্থার মূল প্রতিপাদ্য বিষয় Òবহুমুখী আদর্শিক গ্রাম সমবায়”।

 প্রতিটি সমবায় তার অধীনস্ত জনজীবনের সমস্তা সমস্যা পর্যালোচনা, পরিচালনা ও সমাধান দেবে।

 সারাদেশে দিন-মুজুর, জমিওয়ালা ও ব্যবস্থাপনা পরিষদ (সরকার ও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ) এই তিন শক্তির সমন্বয়ে Òবহুমুখি আদর্শিক গ্রাম সমবায়” গড়ে উঠবে। প্রতিটি সমবায়ের লোক সংখ্যা হবে ৬০০০, পরিবার হবে ১০০০, প্রতিটি পরিবার হবে স্বামী, স্ত্রী দুটি সন্তান ও পিতা-মাতার সমন্বয়ে গঠিত। প্রতিটি গ্রাম সমবায়ে পুলিশ বিভাগ, বিচার বিভাগ, স্বাস্থ্য বিভাগসহ রাষ্ট্র যন্ত্রের প্রতিটি বিভাগের কর্মকর্তা, কর্মচারি থাকবে এবং প্রতিযোগিতামূলকভাবে কৃষি বিপ্লব, শিল্প-বিপ্লব, মৎস্য বিপ্লবসহ নার্সারি, ফ্যামিলি প্ল্যানিং প্রভৃতি এক বিশাল কর্মযজ্ঞ শুরু হবে। এই বিশাল কর্মযজ্ঞ সম্পাদনের জন্য আমাদের দেশের প্রতিটি ছেলেমেয়ের চাকুরি দেওয়ার পরও বাইরের থেকে লোক আমদানী করতে হবে।

 বাসস্থান ঃ দিন মুজুর প্রতিটি পরিবার ২৫ শতাংশ জমির উপর বারান্দাসহ দুই কক্ষ বিশিষ্ট একটি ঘর, একটি স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা, একটি পাকঘর এবং ১০টা পরিবারের জন্য একটি টিউবওয়েল পাবে।

 শিক্ষা ও চিকিৎসা ঃ প্রতিটি পরিবার নিজ বাড়িতে বসে ফ্রি চিকিৎসা পাবে। প্রতিটি ছেলেমেয়ে দুই সেট পোশাক ও একসেট বই ফ্রি পাবে এবং শিক্ষাব্যবস্থা সম্পূর্ণ ফ্রি থাকবে।

 ভাত, কাপড় ও কাজ ঃ নিজ বাড়িতে বসে ছিন্নমূলসহ প্রতিটি শিক্ষিত, অর্ধশিক্ষিত, বেকার ও শ্রমিক কাজ পাবে, বেলা শেষে উপযুক্ত পারিশ্রমিক পাবে, জমিসহ সর্বক্ষেত্রে উৎপাদিত সম্পদের তিন ভাগের এক ভাগ শ্রমদানকারী শ্রমিকরা পাবে, এক ভাগ মালিক পাবে এবং এক ভাগ সমবায় পাবে। উল্লেখ করা যেতে পারে, সম্পদহারা হয়েও দেশের সমস্ত ভূমিহীন দিনমুজুর উৎপাদিত ফসলের তিনের এক অংশ পাবে এবং এভাবেই ধীরে ধীরে তাদের ভাগ্যের উন্নতি হবে।

 রাষ্ট্রীয় শাসন ব্যবস্থা ঃ গ্রামের মেঠো পথ থেকে মহানগরের রাজপথ পর্যন্ত প্রশাসনের সর্বস্তরে জনগণের দ্বারা নির্বাচিত প্রতিনিধি দেশ পরিচালনা করবেন। জনগণ দেশের মালিক, তাই জনগণই তার দেশ শাসন করবেন। এভাবেই প্রতিটি জনগণের গণতান্ত্রিক ও মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করা হবে।

 নির্বাচন পদ্ধতি ঃ নির্বাচনে অস্ত্রবল, লোকবল ও অর্থবল এই তিনটি অপশক্তি নির্বাচনকে প্রভাবিত ও কলুষিত করে। বাকশালের নির্বাচন পদ্ধতিতে এই তিনটি অপশক্তি রোহিত হয়ে যাবে কারন নির্বাচনের প্রচারসহ যাবতীয় খরচ বহন করবে নির্বাচন কমিশন। কোন প্রার্থীর ব্যক্তিগতভাবে পক্ষে কাজ করার কোন অবকাশ নেই। এ অবস্থায় জনগনের প্রিয় মানুষটি নির্বাচিত হয়ে আসবে, হয় সে বড়লোক অথবা গরীব যায় হোক না কেন।

 পুলিশ বিভাগ ও বিচার বিভাগ ঃ প্রতিটি সমবায়ে ২০ সদস্য বিশিষ্ট একটি পুলিশ বিভাগ থাকবে। এই ২০ জন পুলিশ ১০০০ পরিবারের জান-মাল ও শান্তি-শৃক্সখলা নিয়ন্ত্রণ করবে। পারিবারিক ও সমাজ জীবনে অন্যায়-অত্যাচার ও গোলমাল-গোলোযোগ হলে তাৎক্ষণিকভাবে বিচার করার জন্য প্রতিটি সমবায়ে বিচার বিভাগ থাকবে। এই ব্যবস্থা বাস্তবায়িত হলে আপনারা সহজেই বুঝতে পারছেন চুরি-ডাকাতি, অন্যায়-অত্যাচার, গোলমালÑগোলোযোগ ও দূর্নীতি কোনটাই করা সম্ভব হবে না।